এটিএম (ATM) চালুর ইতিহাস

1960 সালে, লুথার জর্জ সিমজিয়ান নামে একজন আমেরিকান ব্যাঙ্কোগ্রাফ একটি মেশিন আবিষ্কার করেন যা গ্রাহকদের নগদ এবং চেক জমা দেওয়ার একটি ব্যবস্থা তৈরি করেন। পরে লন্ডনে এনফিল্ডের রাস্তায় 1967 সালের জুন মাসে জন শেফার্ড-ব্যারন নামে একজন ব্রিটিশ প্রথম এটিএম আবিষ্কারের কৃতিত্ব পান। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এটিএম স্থাপনের কাজটি ডোনাল্ড ওয়েটজেল দ্বারা পরিচালিত হয়েছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম এটিএম 1969 সালের সেপ্টেম্বরে নিউইয়র্কের রকভিল সেন্টারের কেমিক্যাল ব্যাংক শাখায় স্থাপন করা হয়েছিল, তারা গর্বের সাথে ঘোষণা করেছিল “2 সেপ্টেম্বর, আমাদের ব্যাংকগুলি সকাল 9 টায় খুলবে এবং আর কখনও বন্ধ হবে না।” 1970 সালে, একজন ব্রিটিশ নাগরিক জেমস গুডফেলো, একটি ব্যক্তিগত নম্বর (পিন) ধারণাটির প্রস্তাব করেছিলেন, যা গ্রাহকদের পরিচয় স্বয়ংক্রিয়ভাবে যাচাই করবে, এইভাবে স্ব-পরিষেবা ব্যাংকিংয়ের বৃদ্ধিতে একটি যুগান্তকারী মুহূর্ত শুরু হয়েছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে 1977 সালে এটিএম সংখ্যায় অনেক ছিল, তখন সিটি ব্যাঙ্ক নিউইয়র্ক শহর জুড়ে মেশিনগুলি স্থাপনের জন্য 100 মিলিয়ন ডলার দিয়েছিল।

এটিএম ব্যবহার 20% বৃদ্ধি পায় যখন একটি তুষারঝড় শহরের সমস্ত ব্যাঙ্ককে কয়েক দিনের জন্য তাদের শাখা বন্ধ করতে বাধ্য করে। 1977 সালে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি সফটওয়্যার কোম্পানি ন্যাশনাল ক্যাশ রেজিস্টার NCR মডেল 770 চালু করে, এটি একটি সহজ পরিচালিত এটিএম যা ব্যাঙ্কগুলিকে 24/7 পরিষেবা দেয়। 1984 সালের মধ্যে, বিশ্বব্যাপী এটিএম ইনস্টল করার সংখ্যা ছিল 100,000। 2020 সালের হিসাবে, সারা বিশ্বে তিন মিলিয়নেরও বেশি এটিএম চালু। রিটেইল ব্যাংকিং রিসার্চ কনসাল্টিং ফার্মের মতে 2022 সালের মধ্যে এই সংখ্যা চার মিলিয়ন ছাড়িয়ে যাবে। একবিংশ শতাব্দীর প্রথম দশকে অত্যাধুনিক ম্যালওয়্যার বা স্কিমিং ডিভাইসের মতো প্রযুক্তির মাধ্যমে এটিএম জালিয়াতির সংখ্যা বেড়েছে। যদিও একবিংশ শতাব্দীতে ডিজিটাল পেমেন্ট জনপ্রিয়তা অর্জন করছে, তবুও লেনদেনের জন্য বিশ্বের বেশিরভাগ অংশে নগদকে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়। এটিএম, ব্যাংক শাখা, মোবাইল ব্যাংকিং এবং ইন্টারনেট ব্যাংকিং ভবিষ্যতে একে অপরের পরিপূরক হবে বলে আশা করা হচ্ছে।

About admin

Check Also

‍‍`কাকা‍‍` থেকে ‍‍`কেক‍‍`! জানেন কবে, কীভাবে শুরু হয়েছিল বড়দিনে কেক খাওয়ার চল?

রাত পোহালেই ক্রিসমাস। বাঙালির বড়দিন। আর বড়দিন মানেই পাতে থাকবে একটুকরো কেক। ফ্রুট হোক প্লেন …