Thursday , April 18 2024
নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক।
নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক: কিভাবে অনলাইনে নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে হয়, যদি আপনি একজন নতুন ভোটার হয়ে থাকেন তাহলে আপনার জন্য এই আর্টিকেলটি গুরুত্বপূর্ণ। আমরা দেখার চেষ্টা করব কিভাবে ঘরে বসে New Nid Check বিষয় সম্বন্ধে।

অনেকেই নতুন ভোটার হয়েছেন, এখন আপনার কাছে অনলাইনেও পাওয়া যাবে। নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক এর জন্য অবশ্যই ভোটার আইডি কার্ডের সিরিয়াল নাম্বার ও জন্ম তারিখ প্রয়োজন হবে। এই দুটি ব্যবহার কর অনলাইনে নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন। Bangladesh Election Commission অফিসিয়াল ওয়েবসাইট হতে NID চেক করা যাবে।

একনজরে বিষয় শিরোনাম।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক।

অনেকেই রয়েছেন যারা নতুন ভোটার হয়েছেন এবং ভোটার আইডি কার্ড পেয়েছেন। এখন এটি অনলাইনে পাওয়া যাবে আপনি যেকোনো জায়গা থেকে এটি অনলাইনে সহজে খুঁজে পাবেন। তবে এটি খোঁজার জন্য আপনার প্রয়োজন হবে ভোটার আইডি কার্ড নাম্বার, ও জন্ম তারিখ। এই দুটি ব্যবহার করে যেকোন স্থান হতে শুধুমাত্র একটি স্মার্ট ডিভাইসের মাধ্যমে নতুন আইডি কার্ড চেক করা যাবে।

অনেক ক্ষেত্রে আমরা যাচাই-বাছাইয়ের জন্য সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে অসক্ষম হয়ে থাকি। দ্রুত সময়ের মধ্যে একটি ভোটার আইডি কার্ড, বা জাতীয় পরিচয় পত্র (NID) যাচাই করার জন্য বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশন ওয়েবসাইট ব্যবহার করতে পারব। যেখানে সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আপনি কার্ড চেক করতে পারবেন।

শুধুমাত্র একটি কম্পিউটার / স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকলে, নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করা যাবে। তাহলে চলুন এখন আমরা দেখে নেব কিভাবে আপনি, ঘরে বসেই নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করবেন নিয়ম ও পদ্ধতি।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করার নিয়ম।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে https://services.nidw.gov.bd সাইটে ভোটার আইডি নাম্বার ও জন্ম তারিখ দিয়ে অ্যাকাউন্ট করে, NID Wallet দিয়ে ভেরিফিকেশন করার পর আপনার নতুন ভোটার আইডি কার্ড দেখা যাবে।

যারা ২০১৮ সালের পরবর্তী সময়ে, ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করেছেন তারা বর্তমানে শুধুমাত্র ন্যাশনাল আইডি কার্ডটি পাবেন। এবং যারা পূর্বে ভোটার হয়েছেন বা আবেদন করেছিলেন তারা কিন্তু স্মার্ট (nid) বা ভোটার আইডি কার্ড পাবে। তো নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে আপনাকে এই উপায় অবলম্বন করতে হবে।

যদি আপনার স্মার্ট কার্ড হয়ে থাকে তাহলে আপনি অন্যভাবে স্মার্ট কার্ড স্ট্যাটাস চেক দেখতে পারবেন। সাধারণ এর আইডি কার্ডের জন্য এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন। পূর্বে ন্যাশনাল আইডি কার্ড বা নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক, করার জন্য আরও একটি ওয়েবসাইট থাকলেও সেখানে এখন এই সেবা টি বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক যা দেখা যাবে।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করলে বেশ কিছু তথ্য আপনি অনলাইনে দেখতে পারবেন। এবং উপস্থিত ব্যক্তির পরিচয় নিশ্চিত করতে পারবেন। যদি ভোটার আইডি কার্ডটি অরিজিনাল হয় তাহলে নিম্নলিখিত তথ্য গুলি দেখা যাবে।

  • নাম: আপনার ভোটার আইডি কার্ডের নাম।
  • পিতার নাম: আপনার বাবার নাম।
  • মাতার নাম: আপনার মায়ের নাম।
  • ঠিকানা: আপনার ভোটার আইডি কার্ডের ঠিকানা।
  • জন্ম তারিখ: আপনার ভোটার আইডি কার্ডের জন্ম তারিখ।
  • ভোটার এলাকা: আপনার ভোটার আইডি কার্ডের ভোটার এলাকা।
  • ভোটদানের তারিখ: আপনার ভোটার আইডি কার্ডের ভোটদানের তারিখ।

এই তথ্যগুলি সাধারণত দেখানো হয়, আশা করি এই তথ্যগুলো দেখলে আপনি নিশ্চিত হতে পারবেন যে আপনার ভোটার আইডি কার্ডটি সঠিকভাবে তৈরি হয়েছে। অথবা আপনি যে কারণে ভোটার আইডি কার্ডে চেক করতে চান টা সঠিক।

বৃষ্টির পানি থেকে মোবাইল ফোন সুরক্ষায় যা করবেন

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক কেনো করবেন।

অনেকের প্রশ্ন থাকতে পারে আমরা কেন নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করব ? এর উত্তর হল আপনি শুধুমাত্র ভোটার আইডি কার্ডটি দেখলেই বুঝতে পারবেন না যে এটি আসল নাকি ডুবলিকেট। যদি আপনি নিশ্চিত হতে চান যে এই আইডি কার্ডটি অরজিনাল তাহলে আপনাকে যাচাই করতে হবে।

বর্তমানে মাত্র ২০ থেকে ৩০ টাকা খরচ করলে একটি লেমেন্টিং ভোটার আইডি কার্ড তৈরি করা যায়। যা ব্যবহার করে অনেকেই অনেক ধরনের দুর্নীতি বা দেশ*দ্রো*হী কাজের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে। এখন এটি যাচাই করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি কাজ। যদি আপনার কোন সময় নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করার প্রয়োজন হয় তাহলে উপরোক্ত নিয়ম অনুসরণ করে ভোটার আইডি কার্ড চেক করা যাবে।

প্রতিটি ভোটার আইডি কার্ড বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশন ওয়েব সাইটে সার্ভারে যুক্ত করা হয়েছে। যদি আপনি এর আইডি কার্ড কখনো ব্যবহার করেন তাহলে অবশ্যই সেটি এই সার্ভারে পাওয়া যাবে। এবং আপনার যদি স্মার্ট কার্ড হয় এরপরও পূর্বের যে কার্ডটি রয়েছিল এটাকে ন্যাশনাল আইডি কার্ড বলা হয়ে থাকে সেটিও কিন্তু থেকেই যাবে।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক বাংলাদেশ।

আপনি যেকোনো দেশ থেকে নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন। New nid Card check করার জন্য আপনাকে একই ভাবে নিয়ম গুলো মেনে নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে হবে।

অনেকেই প্রশ্ন থাকতে পারে, স্লিপ নাম্বার দিয়ে কি ভোটার তথ্য পাওয়া যাবে? হ্যাঁ অবশ্যই পাওয়া যাবে যদি আপনি একদম নতুন ভোটার হওয়ার জন্য আবেদন করে থাকেন। এবং আপনার কাছে যদি এই আইডি কার্ড না থাকে এর পরও কিন্তু পরিচয় সনাক্ত করা যাবে স্লিপ নাম্বার দিয়ে। কেননা আপনাকে একটি স্লিপ বা ফর্ম দেওয়া হয়েছে সেখানে একটি সিরিয়াল সংখ্যা নাম্বার রয়েছে।

যেখানে ৬ থেকে ১০ ডিজিটের একটি সিরিয়াল নাম্বার রয়েছে, এবং আপনার জন্ম তারিখটি রয়েছে এই দুটি ব্যবহার করে আপনি অনলাইনে দেখতে পারবেন আপনার আইডি কার্ডটি। এখানে পরিচয় সনাক্ত করা যাবে বা চাইলে আপনার জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি সংগ্রহ করতে পারবেন।

নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক অ্যাপ

অনেকে প্রশ্ন থাকতে পারে, New Nid Card check Apps কি পাওয়া যাবে! উত্তর না, কেননা বাংলাদেশ ইলেকশন কমিশন এর অফিসিয়াল কোন অ্যাপ নেই। যার মাধ্যমে আপনি সরাসরি ভোটার আইডি কার্ড চেক করতে পারবেন অনলাইনে। তবে হ্যাঁ Nid wallet এটি তাদের অফিসিয়াল অ্যাপ যেখানে আপনাকে ফেস ভেরিফিকেশনের মাধ্যমে একটি ভোটার আইডি কার্ড শনাক্ত বা অন্যান্য কার্যক্রম করতে পারবেন।

আশা করি বুঝতে পেরেছেন। এবং কখনো কোন অ্যাপ্লিকেশন সংগ্রহ করবেন না। নতুন ভোটার আইডি কার্ড চেক করার কোনো অ্যাপ নেই। যদি প্লে স্টোর এ সার্চ করার পরও কোন অ্যাপ পাওয়া যায় তাহলে সেটি আনঅফিশিয়াল ব্যবহার না উত্তম।

আশা করি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি বুঝতে পেরেছেন। যদি কিছু বুঝতে সমস্যা হয় অবশ্যই কমেন্টে আপনার মতামত আমাদের সাথে শেয়ার করবেন। সবাই ভালো থাকো সুস্থ থাকবেন, সাথেই থাকবেন।

Check Also

AI দিয়ে প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি

কিভাবে AI দিয়ে প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি করবেন (ভিডিও সহ)

আপনি কি আপনার প্রতিষ্ঠানের জন্য প্রোডাক্ট ফটোগ্রাফি করার কথা ভাবছেন? যেকোনো ধরণের ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের ক্ষেত্রে, …