পৃথিবীতে সবচেয়ে বেশি বেতন কার?

সুন্দর পিচাইয়ের মুকুটে নয়া পালক। গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) সুন্দর পিচাইকে কোম্পানির তরফ থেকে প্রণোদনা হিসেবে ১৯৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের  শেয়ার দেওয়া হয়েছে। এই শেয়ার পাওয়ায় তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ বেতনভোগীতে পরিণত হয়েছেন।
গত বছর অ্যালফাবেট নামের নতুন ওই প্রতিষ্ঠান খোলেন গুগলের দুই প্রতিষ্ঠাতা ল্যারি পেজ ও সের্গেই ব্রিন। এর অধীনে গুগল পরিচালিত হচ্ছে। সার্চ ইঞ্জিন গুগলের অভিভাবক কোম্পানি হিসেবে অ্যালফাবেট গঠন করার পর গুগলের সিইও করা হয় ভারতের তামিলনাড়ুতে জন্ম নেওয়া সুন্দর পিচাইকে। ইউএস সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, গত ৩ ফেব্রুয়ারি সুন্দর পিচাইকে অ্যালফাবেটের ২৭৩,৩২৮টি শেয়ার দিয়ে পুরস্কৃত করা হয় যার মূল্য প্রায় ১৯৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। আগামী তিন বছর ধরে পর্যায়ক্রমে এসব শেয়ারের নিয়ন্ত্রণ পাবেন সুন্দর পিচাই। নতুন শেয়ার পাওয়ায় তিনি আনুমানিক ৬৫ কোটি ডলারের সমপরিমাণ অর্থের শেয়ারের মালিক হলেন।
গুগলের কাছ থেকে শেয়ার পাওয়ার দিনে সুন্দর পিচাই ৭৮৬ দশমিক ২৮ ডলার দামে ৩৭৫টি ‘এ ক্লাস’ শেয়ার ও ৭৬৮ দশমিক ৮৪ ডলার দামে ৩ হাজার ৬২৫ ‘সি ক্লাস’ ক্যাপিটাল স্টক বিক্রি করেন।
অ্যালফাবেটের কাছ থেকে এ শেয়ারগুলো পাওয়ার ফলে গুগলের এ যাবৎকালের প্রধান নির্বাহীদের মধ্যে সুন্দর পিচাই সবচেয়ে বেশি সম্মানী পাচ্ছেন।
৪৩ বছর বয়সী পিচাই গুগলে যোগ দেন ২০০৪ সালে। প্রথম দিকে তিনি গুগল ক্রোমসহ গুগলের কিছু সফটওয়্যার এবং গুগল ড্রাইভের ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে ছিলেন। পরে তার তত্ত্বাবধানের জিমেইল এবং গুগল ম্যাপস তৈরি হয়। ২০১৫ সালের ১০ আগস্ট ল্যারি পেজের জায়গায় গুগলের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব নেওয়া পিচাইয়ের জন্য গুগলের পক্ষ থেকে এটি প্রথম পুরস্কার। গুগলের কোনো নির্বাহীকে দেওয়া সর্বোচ্চ পুরস্কারও এটি।
পিচাই ছাড়াও অন্য কর্মকর্তাদের মধ্যে ভি এম ওয়ারের সাবেক প্রধান নির্বাহী ও গুগলের ক্লাউড ব্যবসার প্রধান ডিয়ান গ্রিন পেয়েছেন ৪ কোটি ২৮ লাখ ডলার। অ্যালফাবেটের প্রধান আর্থিক কর্মকর্তা রুথ পোরাট ৩ কোটি ৮৩ লাখ ডলার মূল্যের শেয়ার পেয়েছেন। পিচাইয়ের মতো তারাও যদি দায়িত্ব চালিয়ে যান তবে প্রান্তিক ভিত্তিতে আরও ইনক্রিমেন্ট পাবেন তারা।
বিবিসি জানায়, ২০১৫ সালে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সম্মানী পাওয়া প্রধান নির্বাহীরা হলেন: ফার্মাসিউটিক্যাল প্রতিষ্ঠান ম্যাককেসনের জন হ্যামারগ্রিন (১৩ কোটি ডলার), রালফ লরেন ফ্যাশন হাউসের রালফ লরেন (৬ কোটি ৬০ লাখ ডলার), আবাসন প্রতিষ্ঠান ভরনাডো রিয়ালটির মাইকেল ফেসিটেল্লি (৬ কোটি ৪০ লাখ ডলার), জ্বালানি অবকাঠামো নির্মাণ প্রতিষ্ঠান কিনডার মরগানের রিচার্ড কিনডার (৬ কোটি ডলার)।
এ দিকে গত সপ্তাহে আরেক প্রযুক্তি জায়ান্ট অ্যাপলকে টপকে গুগলের প্যারেন্ট প্রতিষ্ঠান অ্যালফাবেট বিশ্বের সবচেয়ে দামি প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়। ডিসেম্বরের পূর্বের তিন মাসে প্রতিষ্ঠানটির লাভের অঙ্ক ছিল প্রায় ৪৯০ কোটি ডলার। বার্ষিক হিসাব অনুযায়ী, লাভের পরিমাণ ছিল ১৬৩০ কোটি ডলার।

About admin

Check Also

মানবদেহের ২১ টি মজার তথ্য যা অনেকেরই অজানা

অনেকেরই অজানা মানবদেহের ২১ টি মজার তথ্য

আমাদের ধারণা, আমরা নিজেদের দেহ সম্পর্কে পুরোপুরি জানি। কিন্তু অজানা রয়েছে অনেক কিছুই। আমরা সাধারণত …